Photobazar24
শুক্রবার / ২২শে সেপ্টেম্বর ২০১৭

আমি আর আমার জীবনের লক্ষ্য

আপডেট: 2017-03-17 11:22:04
আমি আর আমার জীবনের লক্ষ্য

ফটোবাজার ; হঠাৎ কি ভেবে আজ কেন জানি নিজের জীবনের অব্যক্ত কথাগুলো বলতে ইচ্ছা করছে, তাই চেপে না রেখে বলছি। দশ জনের মতো আমার জন্ম অজপাড়া গ্রামের এক মধ্যবিত্ত পরিবারে। বাবা ছোটখাট চাকরি করতেন, এখন স্ব-ইচ্ছাই কৃষক, মা গৃহিণী আর ছোট একটা বোন-এই আমাদের পরিবার।

ছোটবেলা থেকেই আমাদের শিশুদের কর্ণকুহরে ঢুকিয়ে দেওয়া হয়- তোমাকে ডাক্তার হতে হবে, ইঞ্জিনিয়ার হতে হবে ইত্যাদি ইত্যাদি। ছোটবেলা থেকে আমাকেও বলা হয়, তোমাকে ডাক্তার হতে হবে! প্রখর রোদ আর ধুলোমাখা রাস্তায় পথ হেঁটে হেঁটে গ্রামের প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পর্দাপন। অত:পর তৃতীয় শ্রেণীর সমাপ্তির সাথে সাথেই তিন কিলোমিটার পথ পায়ে হেঁটে কিল্ডার গার্ডেনে অধ্যায়ন শুরু। কিল্ডার গার্ডেনে পড়া অবস্থায় এক শিক্ষক প্রশ্ন করেছিলেন, তোমার জীবনের লক্ষ্য কি? শিক্ষকের প্রশ্নে নিজ ইচ্ছাই বলে ছিলাম আমি পুলিশ হবো। কারণটা অবশ্য আমার জানা ছিল না।

কিল্ডার গার্ডেনে পড়া অবস্থায় পড়ালেখা গোল্লাই যাচ্ছিলো। এমন অবস্থায় বাবা জোর করে থানার সরকারী স্কুলে (শিবগঞ্জ সরকারী মডেল হাই স্কুল) অষ্টম শ্রেণিতে ভর্তি করে দিলেন। স্কুলের পাশেই বাসা ভাড়া করে রেখে চলে গেলেন। যাবার সময় বলে গেলেন, ভাল করে পড়, তোমাকে ডাক্তার হতে হবে!

বাবার ইচ্ছা কিছুটা পূরণ করলাম, সর্বোচ্চ রেজাল্ট নিয়ে স্কুল ছেড়ে অনিচ্ছা স্বত্ত্বেও রাজশাহী আসলাম। রাজশাহী সরকারী সিটি কলেজে দেখতে দেখতে দুই বছর কাটিয়ে দিলাম। কলেজে পরীক্ষা ছাড়া ক্লাসের উদ্দেশ্যে দশ দিন গেছিলাম কিনা সন্দেহ আছে। মেসে থাকতাম আর প্রাইভেট পড়েই কাটতো দিন। অবশেষে স্কুলের মতোই সর্বোচ্চ রেজাল্ট নিয়ে কলেজ ছাড়লাম।

কলেজ পাশ করার পর থেকে শুরু হলো ডাক্তার হবার সর্বোচ্চ চেষ্টা। প্রথমবার মেডিকেলে পড়ার কোন সুযোগ হলো না। বন্ধুদের পরামর্শে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বাকৃবি) পরীক্ষা দিলাম। বাকৃবিতে চান্স পেলাম, অনেকটা জোর করেই বাবার ইচ্ছার বিরুদ্ধে ভেটেরিনারি অনুষদে ভর্তিও হলাম। বাবা তখনো পিছু ছাড়েনি। তিনি জানালেন, সেকেন্ড টাইম মেডিকেলে পরীক্ষা দাও নইলে প্রাইভেট মেডিকেলে ভর্তি হও। বাকৃবির মনোমুদ্ধকর সৌন্দর্য, প্রিয় আশরাফুল হক হল আর বন্ধুমহলের কথা ভেবে সেদিন বাবার কথা শুনিনি।



সর্বশেষ খবর